WhatsApp Image    at .. PM
ছবি: নিউজ ১৮

বাচ্চাকে কোলে নিয়ে ট্রেনে ওঠার সময় ঘটে যেত মর্মান্তিক ঘটনা। কিন্তু বেঁচে গেলেন জিআরপি-র এক মহিলা কনস্টেবলের উপস্থিত বুদ্ধির জোরে মহিলা এবং তাঁর কোলে থাকা বাচ্চাটি। এমন রুদ্ধশ্বাস ঘটনার সাক্ষী রইল বিহারের জামুই স্টেশন। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীদের বক্তব্য, ওই মহিলা কনস্টেবল যেন দেবদূত হয়ে এসেছিলেন। আসলে কথিত আছে যে, ঈশ্বর সর্বত্র স্বয়ং আসেন না, তবে মানুষের জীবন রক্ষার জন্য তিনি অবশ্যই কাউকে পাঠান নিজের দূত হিসেবে। এই কথাটাই এখন এলাকাবাসীর মুখে মুখে ফিরছে। শুধু তা-ই নয়, ঘটনার ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

ঠিক কী ঘটেছিল ওই দিন? ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে যে, ব্যস্ত জামুই রেল স্টেশনের এক নম্বর প্ল্যাটফর্ম। টাটা-দানাপুর এক্সপ্রেস ছাড়ার সময় প্রায় হয়ে এসেছে। প্ল্যাটফর্মে বেশ ভিড় চোখে পড়ছিল। ইতিমধ্যেই একেবারে শেষ মুহূর্তে ট্রেনে ওঠার চেষ্টা করছিলেন এক মহিলা। কোলে ছিল একটি শিশু। তবে প্রচণ্ড ভিড়ের কারণে ট্রেনের কামরায় উঠতে না পেরে হাতল ধরে সিঁড়িতেই দাঁড়িয়ে পড়েন। এক হাতে ধরেছিলেন একরত্তিকে, আর এক হাত দিয়ে ধরেছিলেন ট্রেনের কামরার হাতলটি। কিছু বুঝে ওঠার আগেই ট্রেন চলতে শুরু করে। মহিলার তখন টালমাটাল অবস্থা। এই অবস্থা নজরে আসে স্টেশনে কর্তব্যরত জিআরপি কনস্টেবল সুমন ভার্মার। নিজের জীবনের তোয়াক্কা না করেই মহিলা ও শিশুটিকে বাঁচাতে ঝাঁপিয়ে পড়েন।

তিনি প্রথমে ওই মহিলাকে কামরার ভিতরে ঢুকিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু ইতিমধ্যেই ট্রেনের গতি বাড়তে শুরু করে। মহিলা হুড়মুড়িয়ে প্ল্যাটফর্মে পড়ে যেতে থাকেন। পড়ে যান মহিলা কনস্টেবলও। কিন্তু মহিলা এবং তাঁর কোলের শিশু আর একটু হলেই ট্রেনের তলায় চাপা পড়ে যেতেন। কিন্তু মহিলা কনস্টেবল তাঁদের টেনে ধরেন। ফলে বেঁচে যান তাঁরা।

এর পর জিআরপি থানায় নিয়ে যাওয়া হয় মহিলা এবং শিশুটিকে। তাঁরা ধাতস্থ হলে পরের ট্রেনে চাপিয়ে তাঁদের গন্তব্যে পাঠানো হয়। গোটা ঘটনায় ওই জিআরপি মহিলা কনস্টেবলের সাহসিকতার প্রশংসা করছেন প্রত্যক্ষদর্শী থেকে নেটিজেন সকলেই।

First published:

Tags: Viral Video

সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।