v
ছবি: দৈনিক সিলেট

সিলেটে টানা বৃষ্টিতে পানি ঢুকে পড়েছে বিভাগের প্রধান সরকারি চিকিৎসাসেবা প্রতিষ্ঠান সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের ভেতরেও।

হাসপাতালের সামনে থই থই করছে পানি। মেডিকেল কলেজ ভবনের নিচতলার প্রতিটি কক্ষে হাঁটুসমান পানি জমেছে। এতে রোগী, স্বজন ও চিকিৎসকরা ভোগান্তিতে পড়েছেন। ব্যাহত হচ্ছে চিকিৎসাসেবাও।

সোমবার (৩ জুলাই) বিকেলে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে দেখা গেছে, হাসপাতালের সামনে পানিতে টইটুম্বুর। মেডিকেল কলেজের নিচতলার সব কক্ষ পানিতে তলিয়ে গেছে।

খবর পেয়ে সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মাহবুবুর রহমান ভূঁইয়া ও মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. শিশির চক্রবর্তী পুরো এলাকা ঘুরে দেখেন। তারা জলাবদ্ধতার কারণ শনাক্ত করেন।

এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মাহবুবুর রহমান ভূঁইয়া এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ভারী বৃষ্টি হলেই কলেজ ও হাসপাতালের পেছনের ছড়া (খাল) উপচে হু হু করে পানি ঢোকে। এতে তীব্র জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। মেডিকেল কলেজের নিচতলায় পানি ঢুকেছে। কক্ষে হাঁটুসমান পানি।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মাহবুবুর রহমান ভূঁইয়া বলেন, এ পরিস্থিতিতে সিটি মেয়র, মেডিকেলের অধ্যক্ষ ও গণপূর্ত অধিদপ্তরের প্রকৌশলীসহ আমরা জলাবদ্ধতা সৃষ্টির কারণ নির্ণয় করেছি। যে এলাকা দিয়ে পানি ঢুকে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়, সেই এলাকায় স্লুইস গেটের মতো করে নির্মাণ করতে হবে। সিটি করপোরেশন ও গণপূর্ত যৌথভাবে কাজ করবে। বর্তমানে অস্থায়ীভাবে কাজ করা হচ্ছে। পরে স্থায়ীভাবে বন্যা থেকে এ দুটি প্রতিষ্ঠান রক্ষায় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, জলাবদ্ধতার খবরে তাৎক্ষণিক ওসমানী হাসপাতাল ও মেডিকেল কলেজ এলাকা ঘুরে দেখেছি। মূলত মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পেছনের ছড়া উপচে প্রতিষ্ঠানে পানি ঢুকছে। তাতেই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। এটি বন্ধ করতে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

ভারী বৃষ্টি আরও বাড়বে
কয়েকদিন ধরে ভারী বৃষ্টিপাত ও পাহাড়ি ঢলের কারণে সিলেটের নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। এরইমধ্যে সিলেটের বেশ কয়েকটি নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। সিলেট আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেটে এ বছরের সর্বোচ্চ ৩০৭ দশমিক ৪ মিলিমিটার বৃষ্টির রেকর্ড হয়েছে। আগামী কয়েকদিন এ ভারী বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের সিলেট অফিসের ইনচার্জ সহকারী আবহাওয়াবিদ শাহ মো. সজিব হোসাইন জানান, রোববার (২ জুলাই) সকাল ৬টা থেকে সোমবার (৩ জুলাই) সকাল ৬টা পর্যন্ত সিলেটে ৩০৭ দশমিক ৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এটি চলতি মৌসুমের ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত। সোমবার সকাল ৬টা থেকে ৯টা পর্যন্ত ৬১ মিলিমিটার এবং ৯টা থেকে ১২টা পর্যন্ত ১৫ দশমিক ৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আগমী কয়েকদিন ভারী বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকবে। এছাড়া পরবর্তী তিনদিনে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বৃদ্ধি পেতে পারে। তবে দিন ও রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

ডিএস/এমসি

সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।