dfecbdafcdfdc acdbccb
ছবি: ইত্তেফাক

গাইবান্ধার সাদুল্লাপুরে স্ত্রীকে হত্যার পর মহসীন আলী (২৭) নামে এক যুবক থানায় এসে আত্মসমর্পণ করেছেন। শনিবার (৮ জুলাই) সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ রাত ৮টার দিকে মহসীন আলীর বাড়ির শোবার ঘর থেকে গৃহবধূ শেফালী খাতুন (২২)-এর লাশ উদ্ধার করে।

গ্রেপ্তার মহসিন আলী সাদুল্লাপুর উপজেলার নলডাঙ্গা ইউনিয়নের কলেজপাড়া এলাকার নুরু মিয়ার ছেলে। নিহত শেফালী খাতুন (২২) গাইবান্ধা সদর উপজেলার মোল্লাপাড়ার মৃত. কাদের মোল্লার মেয়ে।

জানা যায়, প্রায় ৪ বছর আগে মহসীন আলীর সঙ্গে শেফালী খাতুনের বিয়ে হয়। কিন্তু এত দিনেও কোনো সন্তান না হওয়ায় শেফালীর প্রতি ক্ষুব্ধ ছিল মহসীন। এছাড়া বিয়ের পর থেকেই মহসীন আলী বেকার। ফলে সংসারে ছিল অস্বচ্ছলতা। এসব কারণে বিয়ের কয়েক মাস পর থেকেই তাদের মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া হতো। শনিবার বিকালে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে মহসীন আলী স্ত্রীর গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে।

সাদুল্লাপুর থানার ওসি মাহাবুর রহমান বলেন, শনিবার সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে মহসীন আলী এসে জানান তিনি তার স্ত্রীকে হত্যা করেছেন। লাশ তার শোবার ঘরে রেখে এসেছেন। এ ঘটনায় নিহতের বড়ভাই বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা করেছেন। রোববার আদালতের মাধ্যমে মহসীনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। 

 


সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।