ছবি: নয়া দিগন্ত


ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটের ব্যস্ততা কাটিয়ে সোমবার দেশে ফিরেন সাকিব আল হাসান। ধারণা ছিলো হয়তো মঙ্গলবারেই যোগ দেবেন দলের সাথে। তবে অপেক্ষা বাড়িয়েছেন সাকিব, সারাটা দিন পাড় করেছেন বিজ্ঞাপনী কাজে। তবে যেখানে যে কাজেই যান না কেন, সাকিবকে কথা বলতে হয় ক্রিকেট নিয়েই। ব্যতিক্রম ছিলো না আজো।

সোমবার সাকিবের দিনের শুরুটা হয় বরিশালে একটি হাসপাতাল উদ্বোধন করে, এরপর ঢাকাতে অংশ নেন একটি সিম কোম্পানির প্রচারণার কাজে। এই সময় ওয়ানডে দলের নতুন এই অধিনায়কের কাছে জানতে চাওয়া হয় তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সম্পর্কে।

যেখানে সাকিব জানালেন, তার ভাবনা জুড়ে এখন কেবল এশিয়া কাপ ও বিশ্বকাপ।

বরিশালে থাকাকালীন সাকিব বলেন, ‘ঢাকায় আমার অ্যাকাডেমি আছে। আর অবশ্যই সবারই ইচ্ছে থাকে সে যেই বিভাগে, সেই বিভাগকে আরো এগিয়ে নিয়ে যেতে। কিভাবে ওই সেক্টরকে আরো ভালো করা যায়। আমারো তেমন চিন্তা আছে। কিন্তু তা ভবিষ্যতে দেখা যাবে। আপাতত স্বপ্ন বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপ নিয়ে। আমাদের জন্য দোয়া করবেন।’

ব্যাটে-বলে ২০১৯ বিশ্বকাপটা দুর্দান্ত কেটেছিল সাকিবের, ছিলেন আসর সেরা হবার দৌড়েও। নিজের এমন অবিস্মরণীয় সাফল্যের পেছনে নাকি হঠাৎ পাওয়া একটা ‘কিক’ কাজ করেছে। ২০২৩ বিশ্বকাপের অধিনায়ক সাকিবও কি এমন কোনো কিকের দেখা পেয়েছেন? জানতে চাওয়া হয় তার কাছে।

সাকিবের উত্তর, ‘ওরকম কোনো কিক নেই। শুধু চেষ্টা করতেছি যতটা ফিট থাকা যায়। যেহেতু সামনে আমাদের গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্ট বা সিরিজ আছে। প্রচুর খেলা আছে, ইনজুরি হওয়ার সম্ভাবনাটাও তাই বেশি।’

এদিকে লঙ্কান প্রিমিয়ার লিগে এবারের পুরো আসর খেলেছেন সাকিব। সেখানেই সপ্তাহ খানেক পর থেকে শুরু হচ্ছে এশিয়া কাপ। সাকিব জানালেন এলপিএলে খেলার অভিজ্ঞতা এশিয়া কাপে কাজে দেবে।

এই প্রসঙ্গে সাকিব বলেন, ‘অভিজ্ঞতা বেশ ভালো ছিল। লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগ আমাদের জন্য একটু গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, এশিয়া কাপে শ্রীলঙ্কার সাথে আমাদের ম্যাচ আছে। তাদের সবার সাথে খেললাম, মাঠ সম্পর্কে ধারণা হলো, ওদের খেলোয়াড়দের সম্পর্কেও ধারণা পেলাম। সেদিক থেকে ভালোই হলো।’


সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।