badecfdabcbd dabff
ছবি: ইত্তেফাক

মানবতাবিরোধী অপরাধে আমৃত্যু কারাদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর মৃত্যু নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ায় রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের (আরএমপি) কোর্ট ইন্সপেক্টর খাইরুল ইসলামকে আমর্ড পুলিশ ব্যাটেলিয়নের (এপিবিএন) পার্বত্য জেলায় শাস্তিমূলক বদলি করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার পুলিশ সদর দপ্তরের নির্দেশে তাকে বদলি করা হয়।

এদিকে পুলিশ ইন্সপেক্টর খাইরুলের ফেসবুক পোস্টটি নজরে আসার পর আরএমপি কমিশনার বিজয় বিপ্লব তালুকদার বিষয়টি তদন্তের জন্য আরএমপির সাইবার ক্রাইম ইউনিটকে নির্দেশ দেন। তবে পোস্টটি দেওয়ার বিষয়টি জানাজানি হওয়ায় তোলপাড় সৃষ্টির পরপরই তা ডিলিট করে দেন ইন্সপেক্টর খাইরুল ইসলাম।

এদিকে, আরএমপির সাইবার ইউনিটের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) উত্পল কুমার চৌধুরী তদন্তে নিশ্চিত হয়েছেন ইন্সপেক্টর খাইরুল ইসলামের ফেসবুক আইডি থেকেই পোস্টটি প্রকাশ করা হয়েছিল। গত বুধবার তিনি পুলিশ কমিশনার বরাবর তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে পুলিশের একজন কর্মকর্তা জানান, তদন্ত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ইন্সপেক্টর খাইরুল ইসলাম মানবতাবিরোধী অপরাধে আমৃত্যু কারাদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতাকে নিয়ে ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে পেশাগত অসদাচরণ করেছেন। এতে পুলিশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে। তিনি পুলিশ বিভাগে কর্মরত একজন সরকারি কর্মকর্তা। এ ধরনের পোস্ট সরকারি চাকরিবিধি ও শৃঙ্খলা পরিপন্থি। বুধবারই পুলিশ সদর দপ্তরকে তদন্ত প্রতিবেদনটি পাঠিয়ে দেন মহানগর পুলিশ কমিশনার বিজয় বিপ্লব তালুকদার। বৃহস্পতিবার পুলিশ সদর দপ্তর থেকে ইন্সপেক্টর খাইরুল ইসলামকে শাস্তিমূলক বদলির আদেশ জারি করা হয়।

পুলিশ পরিদর্শক খাইরুল ইসলাম বলেন, তিনি সরল মনে পোস্টটি দিয়েছিলেন। পরে বুঝতে পারেন সেটি দেওয়া তার ঠিক হয়নি। কিছু সময় পর তিনি পোস্টটি ডিলিট করে দেন। এ বিষয়ে আর কোনো মন্তব্য করতে তিনি রাজি হননি।


সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।