ছবি: নয়া দিগন্ত


ভারতের মহারাষ্ট্রে একটি দ্রুতগতির বাস দুর্ঘটনার কবলে পড়ার পরে তাতে আগুন ধরে যায়। আগুনে ঝলসে এখন পর্যন্ত ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার দিবাগত রাত ২টার দিকে বুলঢানা জেলার একটি দ্রুতগতির মহাসড়কে এ ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

আহত অবস্থায় সাতজন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। বাসটিতে ৩৩ জন যাত্রী ছিল।

বুলঢানা জেলার পুলিশ সুপার সুনীল কাড়াসণে জানিয়েছেন, ওই বেসরকারি বাসটি নাগপুর থেকে সমৃদ্ধি মহাসড়ক দিয়ে পুণের দিকে যাচ্ছিল।

কিভাবে হলো দুর্ঘটনা?
দুর্ঘটনার শিকার বাসটির জীবিত যাত্রীদের কাছ থেকে জানা গেছে যে সিন্ধখেড় রাজা নামের একটি জায়গায় বাসটির টায়ার ফেটে নিয়ন্ত্রণ হারায়।

একটি খুটির সাথে ধাক্কা লেগে এরপর বাসটি উল্টে যায় এবং বাসের ডিজেল ট্যাঙ্কে আগুন লেগে বিস্ফোরণ ঘটে।

বিবিসি মারাঠির সংবাদদাতারা জানিয়েছেন, বাসটির সামনের দিকে যাত্রীরা প্রায় সবাই আগুনে ঝলসে নিহত হয়েছে।

কয়েকজন পেছনের দিকের জানলার কাঁচ ভেঙে বেরিয়ে আসতে সক্ষম হয়।

বেঁচে যাওয়া এক যাত্রীর বক্তব্য
বেঁচে যাওয়া এক যাত্রী জানিয়েছেন, ‘আমার ছত্রপতি সম্ভাজী নগর স্টপে নামার কথা ছিল। তখন প্রায় এক ঘণ্টা বাকি ছিল আমার স্টপ আসতে। কিন্তু আমি প্রস্তুত হচ্ছিলাম নামার জন্য। হঠাৎ বাসটা উল্টে যায়। আমি আর আমার বন্ধু নিচে পড়ে যাই। আমার আগের সিটের কয়েকজনকে দেখি কাঁচ ভেঙে বাইরে বের হওয়ার চেষ্টা করছে। আমিও তাদের মতোই জানালা দিয়ে বাইরে লাফ দেই।’

তার কথায়, ‘বাস উল্টে যেতেই আগুন ধরে যায়। ধীরে ধীরে পুরো বাসটাতেই আগুন ধরে যায়। ভেতর থেকে অন্য যাত্রীদের চিৎকার শুনতে পাচ্ছিলাম, কিন্তু আমাদের কিছুই করার ছিল না।’

লাশগুলোর ডিএনএ পরীক্ষা হবে
দুর্ঘটনার কিছুক্ষণের মধ্যেই পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। তারপরে লাশগুলো বের করা হয়।

বুলঢাণার জেলা শাসক এইচ পি তুম্মুঢ় সংবাদ সংস্থা এএনআইকে জানিয়েছেন, ‘লাশগুলোর শনাক্তকরণের প্রক্রিয়া চলছে। ডিএনএ পরীক্ষা করার পরে সেগুলো পরিবারের হাতে তুলে দেয়া হবে।’

মহাসড়ক নির্মাণে ত্রুটির অভিযোগ
নিহতদের ও তাদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করে মুখ্যমন্ত্রী একনাথ শিণ্ডে পাঁচ লাখ রুপি করে সহায়তার ঘোষণা করেছেন।

ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলে সামাজিক যোগযোগমাধ্যম টুইটারে জানিয়েছেন তিনি।

মহারাষ্ট্রের এনসিপি নেতা অজিত পাওয়ার নিহতদের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেও প্রশ্ন তুলেছেন ওই সমৃদ্ধি মহাসড়কের নির্মাণ নিয়েই।

তিনি বলছেন, ‘সমৃদ্ধি হাইওয়ের শুরু থেকেই একাধিক দুর্ঘটনার সম্মুখীন হয়েছে। বহু মানুষ প্রাণ হারিয়েছে। সমৃদ্ধি হাইওয়েতে নির্মাণের ত্রুটির কারণেই যে বারবার দুর্ঘটনা হচ্ছে, তা প্রমাণিত।’
সূত্র : বিবিসি


সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।