ছবি: নয়া দিগন্ত


আরাধ্য এক অর্জনের সামনে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ সেই ২০০৭ প্রথম বিশ্বকাপে সুপার এইটে উঠেছিল টাইগাররা, এরপর আর কোনো আসরেই প্রথম রাউন্ডের বাধা টপকাতে পারেনি তারা। ফলে বাংলাদেশের সামনে দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপের সুপার এইটে খেলার হাতছানি।

শুধু তাই নয়, আরো একটা অর্জন ডাকছে টাইগারদের। এই পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রতিটি আসরে অংশ নিলেও কখনোই দুটোর বেশি জয় পায়নি তারা আগামীকাল নেপালকে হারাতে পারলে সেই বৃত্ত ভেঙে নতুন রেকর্ড গড়বে বাংলাদেশ। এক আসরে তৃতীয় জয় তুলে নেবেন সাকিব-শান্তরা।

তাছাড়া রাত পোহাতেই ঈদের আমেজ ছুঁয়ে যাবে দেশবাসীকে। আনন্দে আত্মহারা হয়ে উঠবে সবাই। সেই আনন্দ আরো বাড়িয়ে দিতে মুখিয়ে টাইগাররা। নেপালকে হারিয়ে সেই আনন্দে দিতে চায় ভিন্ন মাত্রা। এমনই সব লক্ষ্যে সোমবার ভোরে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। সেন্ট ভিনসেন্টে খেলা শুরু সকাল সাড়ে ৫টায়।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আত্মবিশ্বাসে নতুন রসদ পাওয়া নেপাল চোখ রাঙাচ্ছে টাইগারদের। স্পিন জাদুতে যেভাবে প্রোটিয়াদের ধসিয়ে দিয়েছে শনিবার, তাতে খানিকটা চিন্তা করতেই হচ্ছে বাংলাদেশকে। তবে তার চেয়েও বড় চিন্তা টপ অর্ডারের ধারাবাহিক ব্যর্থতা।

লিটন দাস আর নাজমুল হোসেন শান্ত এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপে ব্যর্থ। তিন ম্যাচ খেলেও প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি তারা। তবে আগামীকাল দুজনের জন্যই ফর্মে ফেরার সুযোগ থাকছে। নেপালের ম্যাচে যদি লিটন-শান্ত রান পেয়ে যায়, তাহলে একটা পূর্ণতার অনুভূতি নিয়েই সুপার এইটে যাবে বাংলাদেশ।

বোলিংয়ে বাংলাদেশের স্বয়ংসম্পূর্ণতা আগে থেকেই। এক সাকিব আল হাসান ছাড়া সবাই সফল। ফলে দলের অন্যতম সেরা পেসার হয়েও শরিফুলকে থাকতে হচ্ছে একাদশের বাইরে। শেখ মেহেদী, তানভীর ইসলামরাও সুযোগ পাচ্ছেন না রিশাদের কাছে।

আগামীকাল একাদশে পরিবর্তনের সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। শেষ ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের সাথে থাকা দলটাই খেলতে পারে আবারো। তবে সুপার এইটের আগে বেঞ্চে থাকা বাকিদেরও পরখ করে নিতে পারে ম্যানেজমেন্ট। তেমনটা হলে শরিফুল-শেখ মেহেদীর কপাল খুলতে পারে।

জাকের আলিকে বিশ্রাম দিয়ে স্পিন শক্তি বাড়াতে শেখ মাহাদীকে একাদশে আনতে পারেন হাথুরুসিংহে। তাছাড়া তাসকিন বা তানজিম সাকিবের একজনকে বিশ্রাম দিয়ে শরিফুলকে এবারের আসরে প্রথমবার সুযোগ দিতে পারে দলে।

বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ : নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), লিটন কুমার দাস, তানজিদ হাসান তামিম, তাওহিদ হৃদয়, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, রিশাদ হোসেন, জাকের আলী অনিক, তাসকিন আহমেদ, তানজিম সাকিব ও মোস্তাফিজুর রহমান।

নেপালের সম্ভাব্য একাদশ : রোহিত পাউডেল (অধিনায়ক), কুশল ভুর্টেল, আসিফ শেখ, সুদীপ জোরা, কুশল মাল্লা, দীপেন্দ্র সিং আইরি, গুলসান ঝা, সোমপাল কামি, করণ কেসি, অবিনাশ বোহারা ও ললিত রাজবংশী।


সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।